রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক দেবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামি বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আসছেন। ‘রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক’ ও কুমুদিনীর ৮৬তম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিনি মির্জাপুরে আসছেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর বোন শেখ রেহানা সহ মন্ত্রিপরিষদের কয়েক সদস্য সহ ৩৫০জন সফরসঙ্গী উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনকে কেন্দ্র করে মির্জাপুরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

আজ মঙ্গলবার (১২ মার্চ) কুমুদিনী মেপ্লেক্সের নতুন লাইব্রেরিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সাজানো হচ্ছে মির্জাপুরে কুমুদিনী হাসপাতাল, ভারতেশ্বরী হোমস, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ, কুমুদিনী নার্সিং স্কুল অ্যান্ড বিএসসি নার্সিং কলেজসহ কুমুদিনী কমপ্লেক্সের সেবাধর্মী বিভিন্ন ইউনিটসহ পুরো মির্জাপুর উপজেলা।

কুমুদিনী হাসপাতালের মূল ভবনের দক্ষিণ পাশে নির্মাণ করা হয়েছে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ম্যুরালসহ বিভিন্ন স্থাপনা।

প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে কুমুদিনী কমপ্লেক্সের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে ‘রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক’ অনুষ্ঠানে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মির্জাপুরে কুমুদিনী কমপ্লেক্সে আসবেন।

প্রধানমন্ত্রী কুমুদিনী কমপ্লেক্স পরিদর্শনের পর রণদা প্রসাদ সাহা স্মারক স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে ভারতেশ্বরী হোমসের সবুজ চত্বরে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী (মরণোত্তর), বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম (মরণোত্তর), শিল্পী শাহাবুদ্দিন এবং নজরুল বিশেজ্ঞ অধ্যাপক রফিকুল ইসলামকে স্বর্ণপ্রদক প্রদান করবেন।

কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট্র অব বেঙ্গল (বিডি) লিমিটেড এ অনুষ্ঠানের আয়োজক।

প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে ভারতেশ্বরী হোমসের ছাত্রীরা দৃষ্টিনন্দন মনোজ্ঞা ডিসপ্লে এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে মির্জাপুরের কুমুদিনী কমপ্লেক্সে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। এখানে বেশ কয়েকটি স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। ওইদিন ৪ স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৩টি হ্যালিপ্যাড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তিনি যে কোন একটিতে নামবেন। তারপর তিনি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে বর্তমান এমপি আলহাজ একাব্বর হোসেনের নির্বাচনী জনসভায় মির্জাপুর এসকে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বশেষ এসেছিলেন।