‘মধুপুরে তাবলীগের দুই গ্রুপে উত্তেজনা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে প্রশমন’

টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় তাবলীগ জামাতের জোবায়ের ও সা’দপন্থীরা মুখোমুখি অবস্থান করায় বেশ উত্তেজনা বিরাজ করছিল। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে উত্তেজনা কিছুটা প্রশমন হয়েছে। অবস্থান করা মসজিদ থেকে সা’দপন্থী তাবলীগ জামাতের একটি দল মসজিদ ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হয়েছে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) উপজেলার আলোকদিয়া ইউনিয়নের রক্তিপাড়া বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন জামে মসজিদে তাবলীগ জামাতে আসা ২০/২৫ জনের সা’দপন্থী দলের অবস্থান নিয়ে এই উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

রক্তিপাড়ার আশরাফুল ইসলাম মাসুমসহ স্থানীয়রা জানান, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা ও টাঙ্গাইলের কালিহাতী এলাকার তাবলীগ জামাতের সা’দপন্থী ওই দলটি রক্তিপাড়া মসজিদে অবস্থান করার খবর শুনে জোবায়েরপন্থীরা সংগঠিত হতে থাকে। সোমবার (১৫ এপ্রিল) ফজর নামাজের সময় পৌর এলাকা ও তার আশপাশের মসজিদে মসজিদে ঘোষণা দিয়ে হাটখোলা মসজিদে সকালে মিটিং এ বসে তারা।

পরে খবর পেয়ে মধুপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু তাদের নিবৃত করে প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করলে কয়েক প্লাটুন পুলিশ ওই মসজিদ এলাকায় গিয়ে নিরাপদে তাদের মসজিদ ত্যাগের ব্যবস্থা করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন জানান, দুই/তিন মাস আগে ওই মসজিদে জু’মার নামাজের বয়ানে মিলাদ মাহফিল নিয়ে দেয়া তথ্যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়। সেখান থেকে তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের স্থানীয় অস্তিত্ব স্পষ্ট হয়ে উঠে।

ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ তালুকদার দুলাল জানান, সা’দপন্থীদের ২০/২৫ জনের একটি দল ওই মসজিদে অবস্থান করছে জেনে জোবায়ের পন্থীদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। অঘটন এড়াতে সৃষ্ট সমস্যা পুলিশী সহায়তায় দূর করা যায়।

এ বিষয়ে মধুপুর থানার (ওসি) সফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, অঘটন এড়ানো গেছে। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিষয়টি জেলা পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট ফোরামে জানানো হবে।

(মধুপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-