বাড়ি নির্মাণে ৭৫ শতাংশ ঋণ পাবেন প্রবাসীরা

প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশে বাড়ি নির্মাণ বা ফ্ল্যাট কেনার জন্য আর্থিক সুবিধা আরো বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ভোক্তা ঋণ নীতিমালা অনুযায়ী এখন থেকে বাড়ি নির্মাণ বা ফ্ল্যাট কিনতে তারা মোট খরচের ৭৫ শতাংশই ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারবেন। রোববার এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্র জানা গেছে, কোনো প্রবাসী বাংলাদেশে ১ কোটি টাকা মূল্যে বাড়ি কিনতে চাইলে তিনি ২৫ লাখ টাকা রেমিট্যান্স পাঠাবেন। বাকি ৭৫ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ নেয়ার সুযোগ পাবেন। এতদিন ১ কোটি টাকা মূল্যে বাড়ি কিনতে বা নির্মাণে তার ৫০ লাখ টাকা ঋণ নেয়ার সুযোগ ছিল। অর্থাৎ মোট খরচের অর্ধেক (৫০:৫০) ঋণ নেয়ার সুযোগ ছিল।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে এক সার্কুলারের মাধ্যমে দেশের ব্যাংক থেকে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য গৃহঋণ নেয়ার সুযোগ করে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ওই সময় ভোক্তা ঋণ নীতিমালার আওতায় বাড়ি বা ফ্ল্যাট কেনায় মোট ব্যয়ের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ নেয়ার সুযোগ ছিল। ওই সার্কুলারের আগ পর্যন্ত প্রবাসীদের যেকোনো ঋণ নিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পূর্বানুমতি নিতে হতো।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, প্রবাসীদের ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে অন্যান্য বিষয় অপরিবর্তিত থাকবে। অর্থাৎ নীতিমালায় আগে যা ছিল তাই থাকবে। ভোক্তা ঋণ নীতিমালা অনুযায়ী, গৃহায়ন খাতে সর্বোচ্চ ১ কোটি ২০ লাখ টাকা ঋণ দিতে পারে ব্যাংক। অর্থাৎ- কোনো প্রবাসী ২ কোটি হোক আর ৩ কোটি হোক, ফ্ল্যাট বা বাড়ি কিনলে বা নিজের জমিতে বাড়ি নির্মাণ করলে তিনি সর্বোচ্চ এক কোটি ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতেন। মোট ব্যয় এর চেয়ে বেশি হলেও সর্বোচ্চ এ পরিমাণ ঋণই দিতো ব্যাংকগুলো।

আর নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, এর কম ঋণ হলে যে পরিমাণ ব্যয় হবে তার ৭৫ শতাংশ ঋণ পাওয়া যাবে। আর ২৫ শতাংশ নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ব্যয় করতে হবে।

নিয়মানুসারে, বিদেশি উৎস থেকে আয়ের বিপরীতে ঋণের অর্থ পরিশোধ করা যাবে। এক্ষেত্রে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনকারী ব্যাংক শাখায় প্রবাসীর পরিচালিত অ্যাকাউন্টে অর্থ পাঠিয়ে কিস্তি পরিশোধ করতে পারবেন তিনি। আবার কেউ চাইলে বাসা ভাড়া থেকে পাওয়া অর্থের বিপরীতে ঋণ পরিশোধ করতে পারবেন।

 

(চ্যানেলআই/ঘাটাইল কম)/-

113total visits,3visits today