ফিলিস্তিনিদের মসজিদকে মদ খাওয়ার বার বানাল ইসরাইল

ইসরায়েলের সাফেদ শহরের আল-আহমার মসজিদকে একটি বার, নাইট ক্লাব এবং বিয়ের হলে পরিণত করেছে শহরটির কর্তৃপক্ষ। সেখানে এখন পার্টির আয়োজন করে মদ্যপান করা হয়। মাঝে মাঝে বিয়ের অনুষ্ঠানও আয়োজন করা হয়। রাতে গানের তালে নাচতে দেখা যায় তরুণ-তরুণী থেকে সব বয়সী মানুষকে। লন্ডন থেকে প্রকাশিত সংবাদপত্র আল-কুদস আল-আরাবি’র বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক গণমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর।

গত ১১ এপ্রিল গণমাধ্যমটিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, আরব শহরের সবচেয়ে ঐতিহাসিক মসজিদগুলোর মধ্যে অন্যতম এটি। মসজিদটি ১৯৪৮ সালে দখল করে ইহুদিরা।

আরও বলা হয়, মসজিদ ভবনটিকে প্রথমে একটি ইহুদি স্কুল, তারপর বেনজামিন নেতানিয়াহুর দল লিকুদের নির্বাচনী প্রচারণা কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হতো।

এই প্রতিবেদনে বলা হয়, শেষমেশ বারে ও বিয়ের হলে পরিণত করার আগে মসজিদ ভবনটিকে অস্ত্রের গুদাম হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

লন্ডনভিত্তিক সংবাদপত্রটির খবর অনুসারে, এই ইসরায়েলি পৌর-কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি ফার্ম মসজিদটিকে বার এবং ওয়েডিং হলে পরিণত করেছে।

সাফেদ অ্যান্ড তিবেরিয়াস ইসলামিক এনডোমেন্টের সেক্রেটারি খাইর তাবারি জানান, নাজারেথ কোর্টে তার করা একটি আবেদনের বিষয়ে আদালতের সিদ্ধান্ত পাওয়ার অপেক্ষা করছেন তিনি।

তিনি জানান, মসজিদটি যে মুসলিমদের সম্পত্তি, তা প্রমাণ করার জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র তিনি আদালতের কাছে পেশ করেছেন। এছাড়া মসজিদটি রক্ষা করতে তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক ও জনপ্রিয় সংস্থাগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

সাফেদে একসময় ১২ হাজার ফিলিস্তিনি বসবাস করতো। ১৯৪৮ সালে ইহুদিরা শহরটি দখল করার পর তাদেরকে সেখান থেকে জোর করে বের করে দেয়।

(অনলাইন ডেস্ক, ঘাটাইলডটকম)/-