দেবী সরস্বতীকে ‘কটূক্তি’ : সাংবাদিক আনিস আলমগীরে বিরুদ্ধে মামলা

হিন্দু ধর্মের দেবীকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে মামলার আর্জি জানানোর পর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক এবং ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক আনিস আলমগীরের বিরুদ্ধে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদালতে জমা দেয়া অভিযোগে বলা হয়েছে, হিন্দুদের বিদ্যার দেবী স্বরস্বতীকে নিয়ে ফেসবুকে অশালীন কথা লিখেছেন আনিস আলমহীর।

মঙ্গলবার ঢাকা আইনজীবী সমিতির সদস্য সুশান্ত কুমার বসু সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে আবেদনটি করেন। পরে শুনানি শেষে বিচারক সাইফুল ইসলাম ধানমন্ডি থানাকে এজাহার হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। বাদীপক্ষে আইনজীবী ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল মামলাটি পরিচালনা করেন।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়, গত ২২ জানুয়ারি আসামি আনিস আলমগীর তার ফেসবুক আইডিতে স্টাটাসে লিখেন, ‘সরস্বতী একমাত্র দেবী আমি যার প্রেমে পড়েছিলাম। ক্লাস নাইনে পড়াকালে স্কুলের পূজায় আমি তাকে প্রথম দেখি। রূপে এতো মুগ্ধ ছিলাম তার, বিদ্যা চাইতে ভুলে গেছি। আজও বিদ্যা চাইতে পারলাম না এই সর্বকালের সেরা সেক্সি দেবীর কাছে। সামনে গেলে আমি বিদ্যা চাওয়ার কথা ভুলে যাই! সব ভুলে যাই, সে কারণে না পেলাম বিদ্যা, না পেলাম তার সঙ্গে মিল খুঁজতে খুঁজতে বাস্তবের কোনও সরস্বতীকে।’

মামলায় বলা হয়, একজন শিক্ষিত ব্যক্তি হিসেবে দেশের প্রচলিত আইন-কানুন, পারস্পরিক সৌজন্যবোধ ও ধর্মানুভূতি ইত্যাদি সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান থাকা সত্ত্বেও আনিস আলমগীর জেনে শুনে বুঝে হিন্দু সম্প্রদায় ও তাদের আরাধ্য বিদ্যা দেবীকে হেয় প্রতিপন্ন করে এই স্টাটাস দিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে মারাত্মকভাবে আঘাত করছেন।

স্বরস্বতী পূজা চলাকালে আনিস আলমগীরের এই স্ট্যাটাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। পরে অবশ্য তিনি ক্ষমা চেয়ে স্ট্যাটাসটি সরিয়ে নিয়েছেন।

(ঘাটাইল ডট কম)/-

96total visits,1visits today