তারানা-বিরোধী শিবিরের প্রচারণায় টাঙ্গাইলে মোস্তফা জব্বার!

মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের মধ্যে সম্পর্ক যেন কোনোভাবেই স্বাভাবিক হচ্ছে না। বরফ গলছে না তাদের টানাপোড়েনের। উল্টো দিন দিন তিক্ততা বাড়ছে একের পর এক মন্তব্য আর কাজে। এবার তারানা হালিমের প্রত্যাশিত নির্বাচনী আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে তিক্ততার আগুনে যেন ঘি ঢেলেছেন মোস্তফা জব্বার।

গতকাল শুক্রবার তারানা হালিমের নির্বাচনী এলাকা টাঙ্গাইলের নাগরপুর-দেলদুয়ারে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য খন্দকার আব্দুল বাতেনের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। ওই নির্বাচনী আসনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমও মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনিও গতকাল শুক্রবার তার নির্বাচনী এলাকায় জনসংযোগ ও মতবিনিময় করেছেন।

বর্তমান সংসদ সদস্যের পক্ষে মোস্তফা জব্বার নির্বাচনী প্রচারণা চালানোয় নতুন করে চটেছেন তারান হালিমের সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ীরা।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে তারানা হালিম বলেন, আমি ওই আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী। আমি শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাই। আমি শুক্রবার এলাকায় গিয়েছিলাম। সেদিন জব্বার ভাইও গেলেন।

জানা গেছে, মোস্তফা জব্বারের সফরের বিষয়ে তারানা হালিমকে কিছু জানানো হয়নি বা সংশ্লিষ্ট কোনো অনুষ্ঠানেও তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

তারানা হালিমের সমর্থকদের ক্ষোভের বিষয়ে জানতে চাইলে মোস্তাফা জব্বার বলেন, তাতে আমার কী? আমি বর্তমান সংসদ সদস্য বাতেন সাহেবের ওখানে গিয়েছি। উনার ওখানে একটা স্কুলে অনুষ্ঠানও ছিলো।

তিনি বলেন, ওখানে তো এইচ টি ইমাম (প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা)ও গিয়েছেন।

টাঙ্গাইলের নাগরপুর দেলদুয়ার আসনে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে বিজয়ী হন খন্দকার আব্দুল বাতেন। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধের বাতেন বাহিনীর প্রধান এই রাজনীতিবিদ এক সময় জাসদ রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন। বর্তমানে তার সাথে আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের সাথে ব্যাপক ‘দূরত্ব’ চলছে বলে জানা গেছে।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এই আসন থেকে সরাসরি নির্বাচনের মাধ্যমে এমপি হওয়ার ইচ্ছায় ব্যাপক গণসংযোগ ও উন্নয়নমূলক কাজ করছেন। স্থানীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রতি সপ্তাহে এলাকায় বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠানে নিয়মিত অংশগ্রহণ করছেন।

(পরিবর্তন, ঘাটাইল ডট কম)/-

109total visits,1visits today