ঢাকায়ও বন্যা বিস্তৃত হওয়ার আশঙ্কা নেই, বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে,

সার্বিকভাবে দেশের উত্তর ও দক্ষিণ-মধ্যাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে। এছাড়া ঢাকায়ও বন্যা বিস্তৃত হওয়ার আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

পূর্বাভাস কেন্দ্রের শনিবার বেলা ১১টার তথ্য অনুযায়ী, দেশের উত্তরাঞ্চলের (কুড়িগ্রাম, জামালপুর, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ) বর্তমান বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি অব্যাহত থাকবে। দক্ষিণ-মধ্যাঞ্চলের (মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, মুন্সিগঞ্জ, শরীয়তপুর) নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি কিছু জায়গায় স্থিতিশীল এবং কিছু জায়গায় আরও অবনতি হবে, যা পরবর্তীতে স্থিতিশীল হয়ে আসবে।

গঙ্গা অববাহিকার পানি বাড়লেও তা বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মধ্যাঞ্চলের ঢাকার চতুর্দিকের পাঁচটি নদীর পানি বিপদসীমার ৩ সে.মি. থেকে ১২০ সে.মি. নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অন্যদিকে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, মৌসুমি বায়ু (বর্ষা) এখন বাংলাদেশের ওপর দুর্বল। তাই আগামী কয়েকদিন দেশের কোথাও অতি ভারি বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘দেশের উত্তরাঞ্চলের ব্রহ্মপুত্র-যমুনার পানি কমা অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি অব্যাহত থাকবে। ব্রহ্মপুত্র-যমুনার পানি নুনখাওয়া, চিলমারী, বাহাদুরাবাদ, সারিয়াকান্দি এবং সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে হ্রাস অব্যাহত আছে। তিস্তা-ধরলা-দুধকুমার অববাহিকার নদীর পানি হ্রাস অব্যাহত রয়েছে, এই অঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি অব্যাহত থাকবে।’

তিনি বলেন, ‘গঙ্গার পানি বাড়তে থাকলেও তা বর্তমানে বিপদসীমার প্রায় ৪৮ থেকে ১১৬ সে.মি. নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পদ্মা নদীর পানি উজানের (গোয়ালন্দ) পয়েন্টে স্থিতিশীল এবং ভাটির (মুন্সীগঞ্জের-ভাগ্যকূল এবং শরীয়তপুরের সুরেশ্বর) পয়েন্টে বেড়েছে। পদ্মার পানি আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বাড়বে, তবে এই নদীর পানি বাড়ার হার আগের তুলনায় কমে আসছে এবং বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হবে।’
নির্বাহী প্রকৌশলী আরও বলেন, ‘সার্বিকভাবে বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে। তাই এই মুহূর্তে আমরা ঢাকাতে বন্যা হওয়ার কোনো আশঙ্কা করছি না।’

মেঘনা অববাহিকায় বন্যা পরিস্থিতি আগামী ২৪-৪৮ ঘণ্টায় উন্নতি অব্যাহত থাকবে বলেও জানান সাজ্জাদ হোসেন।

বন্যা সতর্কীকরণ কেন্দ্রের সকাল ৯টার তথ্য অনুযায়ী, ২৮টি পয়েন্টে দেশের বিভিন্ন নদ-নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পর্যবেক্ষণাধীন ৯০টি পয়েন্টের মধ্যে ৫১টি পয়েন্টে পানি কমেছে, বেড়েছে ৩৬টি পয়েন্টে।

সকালে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর দুর্বল রয়েছে এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ এবং সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ঢাকা বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি বর্ষণ হতে পারে।

এই সময়ে সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

Views

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।