টাঙ্গাইল পৌরসভায় বিদ্যুতের বকেয়া বিল ১৭ কোটি টাকা

টাঙ্গাইল পৌরসভার ১০ কোটি টাকা সহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে প্রায় ১৭ কোটি টাকা বিদ্যুৎবিল বকেয়া রয়েছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইল পৌরসভার কাছেই প্রায় সাড়ে ১০ কোটি টাকার বিদ্যুৎবিল বকেয়া রয়েছে। সর্বশেষ ২০০৮ সালে জরুরি অবস্থার সময় পৌরসভা ছয় কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে। তার পর দীর্ঘ ১০ বছরেও তারা কোন বিদ্যুৎবিল পরিশোধ করেনি।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের বিক্রয় ও বিতরন বিভাগ-১ সূত্র জানায়, টাঙ্গাইল পৌরসভার ১২টি বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে। ১২টি সংযোগের মধ্যে পৌরসভা ভবন, দুইটি পানির পাম্প স্টেশন ও বিভিন্ন সড়ক বাতির সংযোগ অন্তর্ভুক্ত। এসব সংযোগে গত ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত মোট বকেয়া রয়েছে ১০ কোটি ১৯ লাখ ৮৩ হাজার ২৮৯টাকা।

বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্র জানায়, পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে এই বিল পরিশোধের জন্য একাধিকবার নোটিশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু তারা বিল পরিশোধের কোন উদ্যোগ নেননি। বার বার তাগিদ দেয়ার পরও বিদ্যুৎবিল না দেয়ায় গত ১৮ জানুয়ারি টাঙ্গাইল বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিক্রয় ও বিতরন-১) পৌরসভার মেয়রকে বিল পরিশোধের জন্য চূড়ান্ত নোটিশ দিয়েছেন। এতে আগামি রোববারের (২৮ জানুয়ারি) মধ্যে বিল পরিশোধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া না হলে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার কথা বলা হয়েছে।

সূত্রমতে, এছাড়া বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সহ সব মিলিয়ে টাঙ্গাইলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে প্রায় ১৭ কোটি টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। পৌরসভা ছাড়াও ৭০টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে (মসজিদ-মন্দির) প্রায় পৌনে পাঁচ কোটি টাকা,
২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে এক কোটি ছয় লাখ ৯৩ হাজার টাকা, গণপূর্ত অধিদপ্তরের কাছে ৪৬ লাখ ৫৩হাজার টাকা, স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে ২২ লাখ ৯৪ হাজার টাকা, টেলিফোন এক্সচেঞ্জের কাছে ১৫ লাখ তিন হাজার টাকা, ৩৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে ১২ লাখ ৯৯হাজার টাকা, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের কাছে নয় লাখ ২৩হাজার টাকা, টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজের কাছে পাঁচ লাখ ১০হাজার টাকা এবং নির্বাচন অফিসের কাছে এক লাখ ৩২হাজার টাকা বিদ্যুৎবিল বকেয়া রয়েছে। এসব বকেয়া বিলও আদায়ের জন্য নোটিশ দিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

টাঙ্গাইল বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শাহাদাত আলী জানান, পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে বকেয়া বিল পরিশোধের জন্য চূড়ান্ত নোটিশ দেয়া হয়েছে। ২৮ জানুয়ারির মধ্যে বিল পরিশোধ না করলে তাদের আওয়াতাধীন সকল বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা ছাড়া অন্যকোন পথ থাকবে না।

তিনি জানান, অন্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শুধুমাত্র ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের কাছে এক কোটি ছয় লাখ ৯৩ হাজার টাকা বিদ্যুৎবিল বকেয়া রয়েছে। সকল প্রাতিষ্ঠানিক বিল পরিশোধের জন্য স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে নোটিশ দেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরণ জানান, পৌরসভার রাজস্ব খাতে যা আয় হয়, তা বেতন-ভাতা বাবদ ব্যয় হয়ে যায়। তাই পৌরসভা বিদ্যুৎবিল পরিশোধ করতে পারছে না।

(ঘাটাইল ডট কম)/-

73total visits,1visits today