টাঙ্গাইলের বাসাইলে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ এবং টাকা খেয়ে আসামি ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ

স্কুলে যাওয়ার পথে টাঙ্গাইলের বাসাইলে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে শনিবার ওই স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে এদিন সখীপুর উপজেলার কালিয়ান গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে আশিক (১৮), মোস্তাফিজুর রহমান (৩৫) তার স্ত্রী ইতি বেগমের বিরুদ্ধে মামলা রেকর্ড হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ

 

স্কুলছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, ঘটনার দিন পর পুলিশ মামলা নিয়েছে। অভিযুক্তদের আটক করে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছেপুলিশ এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে

 

জানা যায়, পহেলা আগস্ট সকালে স্কুলে যাওয়ার পথে ওই স্কুলছাত্রীকে আশিকের নেতৃত্বে /৩জন যুবক অপহরণ করে। এরপর কিশোরীকে বাসাইল হয়ে নলুয়ার মুস্তাফিজুর রহমান নামের জনৈক ব্যক্তির বাড়িতে নিয়ে আটকে রেখে গণধর্ষণ করা হয় আগস্ট দেলদুয়ার উপজেলার পেরাকজানী গ্রামে কিশোরীকে এক আত্মীয়ের বাড়ির সামনে ফেলে রেখে চলে যায়। সেখান থেকে তাকে কল্যাণপুরের বাড়িতে নিয়ে আসে তার পরিবার

 

ব্যাপারে ওই স্কুলছাত্রীর মা বলেন, ‘আমার মেয়েকে স্কুলে যাওয়ার পথে আশিকসহ তিনজনে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে। ঘটনায় বাসাইল থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ নানা অজুহাত দেখিয়ে মামলা রেকর্ড করেনি। পরে তিনদিন পর মামলাটি রেকর্ড করেতিনি বলেন, ঘটনার দুই সহযোগীকে আটক করা হলেও রাতে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। ধর্ষকের পরিবার আমাদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। আমরা আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার দেখতে চাই

 

স্কুলশিক্ষক আজিজুল ইসলাম বলেন, সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আমরা এই ঘটনার কঠোর শাস্তি দাবি করছি

 

ব্যাপারে বাসাইল থানার ওসি নূরুল ইসলাম খান বলেন, শনিবার সকালে একটি মামলা হয়েছে। মেয়েটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছেটাকা নিয়ে আটকদের ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন

 

(ঘাটাইল.কম)/-

80total visits,1visits today