টাঙ্গাইলে রূপা ধর্ষণ-হত্যা মামলার আসামিদের দ্রুত ফাঁসির দাবি

টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলার আসামিদের দ্রুত ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে মানবাধিকার আইনজীবী পরিষদ।

বুধবার সকালে টাঙ্গাইল কোর্ট চত্বর এলাকায় তারা এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

এতে বক্তব্য রাখেন মানবাধিকার আইনজীবী পরিষদ সভাপতি এডভোকেট এস আকবর খান, মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আতাউর রহমান আজাদ, এডভোকেট গোলাম মোস্তফা, ওয়াজেদ আলী, রূপার ভাই হাফিজুর রহমান প্রমুখ।

এসময় বক্তারা এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ৫ আসামির দ্রুত ফাঁসির দাবি করেন এবং দ্রুত বিচার কাজ শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রূপাকে চলন্ত বাসে পরিবহন শ্রমিকরা ধর্ষণ করে এবং বাসেই তাকে হত্যার পর টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে তার মৃতদেহ ফেলে রেখে যায়।

এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতেই অজ্ঞাতপরিচয় নারী হিসেবে তার লাশ উদ্ধার করে। পরদিন ময়নাতদন্ত শেষে বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মধুপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখে তার ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে ছবির ভিত্তিতে তাকে সনাক্ত করেন।

গত ২৮ আগস্ট এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ময়মনসিংহ-বগুড়া রুটের ছোঁয়া পরিবহনের হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫) ও সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) গ্রেফতার করে পুলিশ। তারা প্রত্যেককেই আদালতে হাজির করা হয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। মামলার আসামিরা প্রত্যেকেই এখন টাঙ্গাইল জেলহাজতে আছে।

এদিকে গত ১২ অক্টোবর টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জনের কাছে রূপার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়। সেখানে মৃত্যুর কারণ হিসেবে মাথায় আঘাতের কথা উল্লেখ করা হয় এবং তার আগে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে বলা হয়।

(টাঙ্গাইল প্রতিনিধি, ঘাটাইল ডট কম)/-

87total visits,1visits today