জলাবদ্ধতার দায় কে নিবে ?

রাজধানী ঢাকার জলাবদ্ধতার জন্য খাল দখল, নিম্নাঞ্চল উঁচু হয়ে যাওয়া ও অতিবৃষ্টিকে দায়ী করেছেন ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী তাকসিম এ খান। টানা বর্ষণে বুধবার রাজধানীর বেশির ভাগ এলাকায় পানি জমে যাওয়া নিয়ে সমালোচনার মধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এসে ওয়াসার এমডি এই দাবি করেন। বুধবার মানিক মিয়া এভিনিউয়ে হাঁটুপানিতে দাঁড়িয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, জলাবদ্ধতা নিরসন মূলত ওয়াসার কাজ। জলাবদ্ধতা নিরসনের কাজে ওয়াসাকে তেমন পাওয়া যায় না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এই বক্তব্যের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে গতকাল ওয়াসার এমডি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওয়াসার দৈন্য নিয়ে উনি কথা বলেছেন। সম্মান রেখেই বলছি, উনি বলেছেন, অবশ্যই বলবেন; কিন্তু আমি উনার কথার সঙ্গে একমত না। এটা এককথায় একটা ফ্ল্যাট অ্যান্সার। তিনি বলেন, পৃথিবীর কোনো দেশে পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব ওয়াসার কাঁধে নেই। শুধু ঢাকা ওয়াসা ব্যতিক্রম। রাজধানীর চারপাশের খাল দখল, নিম্নাঞ্চল উঁচু হয়ে যাওয়া ও অতিবৃষ্টি জলাবদ্ধতার জন্য দায়ী। ঢাকা ওয়াসা কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তাকসিম এ খান বলেন, ১৯৮৯ সালে ড্রেনেজব্যবস্থা নিয়ে ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথের ব্যর্থতার কারণে ওয়াসাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। তখন সিটি করপোরেশনকে দায়িত্ব দেওয়ার আলোচনা শুরু হলে কর্তৃপক্ষ তারা পারবে না এ রকম মতামত দেয়। পরে ওয়াসার কাঁধেই ন্যস্ত হয় পানি নিষ্কাশনের দায়িত্ব। কিন্তু রাজধানীর চারপাশের খাল, নদীদূষণ আর দখলে বন্ধ হয়ে গেছে। আর বৃষ্টির কারণে চারপাশের নদীর পানি বিপত্সীমার ওপরে আছে। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন পরিমাণে বৃষ্টি হলে তা নিষ্কাশন করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।

আগামী বছর তিন ঘণ্টার মধ্যে পানি নিষ্কাশন করা হবে দাবি করে ওয়াসার এমডি বলেন, আগামী বছর থেকে প্রবল বৃষ্টি হলেও রাজধানীতে তিন ঘণ্টার বেশি পানি আটকে থাকবে না। ২০২৫ সাল নাগাদ রাজধানীতে শতভাগ স্যুয়ারেজব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে বলেও তিনি জানান। তিনি বলেন, পানি, স্যুয়ারেজ ও ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনার মাস্টারপ্ল্যান করা হয়েছে। তবে মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়ন সমন্বয়ের দায়িত্ব নির্দিষ্ট কোনো সংস্থাকে দিতে হবে। রাজধানীবাসীর দুর্ভোগ কমাতে সেবাদানকারী সব সংস্থার সমন্বয় জরুরি। সংবাদ সম্মেলনে ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী কামরুল হাসানসহ ড্রেনেজ সার্কেলের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

148total visits,2visits today

Leave a Reply