ঘোষণার পরপরই স্থগিত ইউএনও তারিক সালমনের সম্মাননা

শনিবার বিকেলে হঠাৎ ঘোষণা আসে নাগরিক সেবায় অসামান্য অবদান রাখায় বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনকে পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বরগুনা জেলা প্রশাসন। শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ফেসবুকে বরগুনা জেলা প্রশাসন পরিচালিত ‘সিটিজেনস ভয়েস বরগুনা’ নামক গ্রুপে এক পোস্টের মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছিলেন। তবে রাত পৌনে ১০টার দিকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. নুরুজ্জামান সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠান স্থগিতের ঘোষণা দেন।

ফেসবুক পেজে তিনি লেখেন, জনাব তারিক সালমনকে আগামীকাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদানের কর্মসূচি আপাতত: স্থগিত করা হয়েছে।

বিকেলের পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন, পাঁচটি ক্যাটাগরিতে মোট ১৬ জনকে আগামীকাল রোববার সকাল ১০টায় বরগুনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত করা হবে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের দাওয়াতপত্রে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীর আঁকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহার করেন ইউএনও তারিক সালমন। সেই সময় তিনি বরিশালের আগৈলঝরায় দায়িত্বরত ছিলেন। ওই ছবিতে বঙ্গবন্ধুকে বিকৃত করা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনার বিষয়টি নিয়ে ওই ইউএনওকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেন। ছবি বিকৃতির অভিযোগ এনে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ ওবায়দুল্লাহ সাজু ওই ইউএনওর বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়।

গত বুধবার বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দেওয়ার সময় বিচারক মো. আলী হোসেন জামিন না মঞ্জুর করে তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আদালতের আদেশে তিনি দুই ঘণ্টা হাজতখানায় ছিলেন।  দুপুরের পর ইউএনওকে জামিন দেওয়া হয়।

(পরিবর্তন/ঘাটাইল.কম)/-

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।