ঘাটাইলে গজারী বাগান কেটে সাবার

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার ধলাপাড়া রেঞ্জের আওতাধীন বটতলী বিটের গিলাবাড়ি মৌজায় বন বিভাগের গজারী বাগান কেটে সাবার করে নিয়েছে সংঘবদ্ধ চোরের দল। বিট কর্মকর্তা মদদে এ গাছ কাটা হয় বলে  জানা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঘাটাইল উপজেলা সন্ধানপুর ইউনিয়নের গিলা বাড়ি মৌজায় রাতের আধারে মকবুল হোসেন এর ছেলে ফজল হোসেন এর বাগানে প্রায় ৩০০টি মুল্যবান গজারী গাছ কেটে নিয়ে যায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম রতন। যার আনুমানিক মুল্য ২০ লক্ষাধিক টাকা।

অথচ বিট কর্মকর্তা সোলায়মান মাত্র দেড় লাখ টাকার বিনিময়ে এই  গাছ কাটার মৌখিক অনুমতি দেয় বলে জানা যায়।

চোরেরা এই সব কাটা গাছ যাতে কেউ বুঝতে না পারে তার জন্য বাগানের ভিতরে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এ ভাবে প্রায় প্রতি রাতেই  মুল্যবান বনের গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে সংঘবদ্ধ চোরেরা। বাগানের ভিতরে গিয়ে দেখা যায় গাছের গুড়ি ও পোড়া ডালপালা  ছাড়া কোন গাছ পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে বাগানের মালিক ফজল হোসেন এর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ২০টি গাছ কাটার অনুমতি ছিলো কিন্তু টাকার অভাবে বড় সব গাছ গুলি বিক্রি করে দিয়েছি।

ইউপি চেয়ারম্যানের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম রতন এর নিকট গজারী গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, আমার ক্ষতি করবেন না দেখা করেন, লাভ হবে।

গজারির বাগান সাবার করার বিষয়ে ঐ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম জানান, জমি রেকর্ডের তারপরও অনুমোদন ছাড়া গজারী গাছ কাটা অপরাধ।

বিট কর্মকর্তা সোলায়মান জানান, এসব গজারী  গাছ কাটার বিষযে আমি কিছুই জানি না।

টাঙ্গাইল জেলার সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) এম এ হাসানের নিকট বাগানের গজারী গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি তো বাগানের গাছ কাটার বিষয়ে আপনার কাছে জানলাম। খোঁজ নিয়ে আপনাকে জানাচ্ছি।

(উত্তম আর্য্য, ৩১ জানুয়ারি ২০১৮, ঘাটাইল ডট কম)/-

262total visits,1visits today