ঘাটাইলের ৬ ইউনিয়ন সহ শতাধিক ইউপিতে ভোট মার্চের শেষে

আগামী মাসে শতাধিক ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করেছে নির্বাচন কমিশন। মার্চের শেষ সপ্তাহে এ সব নির্বাচনের ভোটের দিন নির্ধারণ করা হতে পারে। এ মাসে তফসিলও ঘোষণার কথা জানিয়েছে ইসি সচিবালয়। আগামী সংসদ নির্বাচনের আগে তৃণমূলের এ নির্বাচনে নৌকা-ধানের শীষের লড়াই হবে বলে মনে করছেন নির্বাচন বিশ্লেষকরা।

ইসির কর্মকর্তারা বলেছেন— সাধারণ ও শূন্য পদে এবং বিভিন্ন কারণে স্থগিত হওয়া মোট ১৩১টি ইউনিয়ন পরিষদে মার্চের শেষ সপ্তাহে ভোট করার পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন। দেশের ৫২টি জেলার ইউনিয়ন পরিষদে এ ভোট করতে যাচ্ছে সাংবিধানিক এ সংস্থাটি।

ইসি সূত্র জানায়, মামলাসহ বিভিন্ন কারণে মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও বছরের পর বছর ভোট হয় না এমন ৩৫টি এবং নতুন ইউপি গঠন করা হয়েছে। কিন্তু এখন ভোট হয়নি এমন ১১ টিসহ মোট ৪৬ টি ইউপিতে সাধারণ নির্বাচন হবে। অন্যদিকে ৮৫টি ইউনিয়নের ৯৩টি শূন্য পদে নির্বাচন করবে ইসি। এসব ইউপিতে সকাল আটটায় ভোটগ্রহণ শুরু হবে। চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত।

ইসির একজন সিনিয়র সহকারী সচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন ইউনিয়ন পরিষদের তালিকা এবং ভোটার তালিকার সিডি প্রস্তুত করেছে। চলতি মাসের শেষের দিতে তফসিল দিয়ে মার্চের শেষে ভোট করার প্ররিকল্পনা রয়েছে। এখন কমিশন বৈঠকে চূড়ান্ত তারিখ ঠিক হলে ভোট দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, গত ৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন উপযোগী ৪৬টি ইউনিয়নের সাধারণ ও স্থগিত এবং ৮৫টি ইউনিয়নে ৯৩টি পদে উপ-নির্বাচনের জন্য সর্বশেষ হালনাগাদ ভোটারসহ ছবিছাড়া ও ছবিসহ ভোটার তালিকার সিডি পাঠানো হয়। পরে মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তরা সিডি যাচাই করে গত ৮ ফেব্রুয়ারি কমিশনে পাঠিয়েছে। এখন সব প্রস্তুত করা হচ্ছে নির্বাচনের তারিখ ঠিক হলে ভোট হবে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, দেশের অনেক ইউনিয়ন পরিষদ আছে সীমানা জটিলতাসহ বিভিন্ন মামলার কারণে ১০ থেকে ১৫ বছর ভোট হয় না। এসব ইউপির চেয়ারম্যান ও সদস্যরা দীর্ঘদিন ক্ষমতায় রয়েছেন। কমিশন ইউপিগুলোতে ভোট দিয়ে দ্রুত দায়মুক্ত হতে চায়।

যে সব ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে সেগুলো হলো—

চূয়াডাঙ্গা জেলার নাগদহ, আইলহাঁস, বাঁকা, হাসাদাহ, রায়পুর, গড়ায়টুপি; পটুয়াখালীর ডালবুগঞ্জ, মিঠাগঞ্জ, বালিয়াতলী, ধানখালী, চম্পাপুর, শ্রীরামপুর, লেবুখালী।

টাঙ্গাইলের বাংড়া, বীরবাসিন্দা, পারখী, ধলাপাড়া, সাগরদিঘি, রসুলপুর, লখিন্দর, সন্ধানপুর, সংগ্রামপুর।

শরীয়তপুরের ঈশান গোপালপুর, চর মাধবদিয়া, নর্থচ্যানেল আলিয়াবাদ, ডিক্রিচর, মাচ্চর, অম্বিকাপুর, কৃষ্ণনগর, কানাইপুর, কৈজুরী, গেরদা।

গাজীপুরের মির্জাপুর, পিরুজালী, ভাওয়ালগড়।

কুমিল্লার শিলমুড়ি দক্ষিণ, শিলমুড়ি উত্তর, খোশবা দক্ষিণ।

খাগড়াছরির জেলার দীঘিনালা, বাবুছড়া।

চট্টগ্রামের কালাপানিয়া।

যশোরের হরিহরনগর।

বরগুনার শারিকখালী ইউনিয়ন।

ইসির কর্মকর্তারা বলেছেন, এই তালিকা থেকেও ইউপির সংখ্যা বাড়তে বা কমতে পারে। এ ছাড়া রাজশাহী জেলার শিলামাড়ী ইউপিতে ভোট করতে আদালতের আদেশ রয়েছে বলে জানান ইসির কর্মকর্তারা।

(ঘাটাইল ডট কম)/-

165total visits,1visits today