একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলা একাডেমির আয়োজনে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৮ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেলা চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বাংলা একাডেমি আয়োজিত অনুষ্ঠানে বইমেলার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনও উদ্বোধন করেন তিনি। বইমেলা চলাকালে ২২ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বইমেলা শুধু বইমেলা নয়। বইমেলা আমাদের সাহিত্য চর্চায় আগ্রহী করে।… এই মেলা মেলা জ্ঞান চর্চার দ্বার উন্মুক্ত করে দেয়।’

এই অনুষ্ঠানে ২০১৭ সালের বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার দেওয়া হয়। উদ্বোধনী অনষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী বইমেলা ঘুরে দেখেন।

কবিতায় মোহাম্মদ সাদিক ও মারুফুল ইসলাম, কথাসাহিত্যে মামুন হোসাইন, প্রবন্ধে অধ্যাপক মাহবুবুল হক, গবেষণায় অধ্যাপক রফিকউল্লাহ্ খান, অনুবাদে আমিনুল ইসলাম ভুঁইয়া, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্যে কামরুল ইসলাম ভুঁইয়া ও সুরমা জাহিদ, ভ্রমণকাহিনীতে শাকুর মজিদ, নাটকে মলয় ভৌমিক, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীতে মোশতাক আহমেদ এবং শিশুসাহিত্যে ঝর্ণা দাশ পুরকায়স্ত এবার বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন।

অ্যামিরেটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, সংস্কৃতি বিষয়ক সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান, বিভিন্ন দেশ থেকে আগত কবি-সাহিত্যিক প্রমুখ।

এবার বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রায় পাঁচ লাখ বর্গফুট হবে মেলার আয়তন। এত বড় আকারের মেলা আগে হয়নি। শুধু পরিসর নয়, মেলার সময়ও বাড়ছে। প্রতিদিন বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ও সরকারি ছুটির দিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে মেলা প্রাঙ্গণ। নামাজ ও মধ্যাহ্নভোজের জন্য ১ ঘণ্টার বিরতি থাকবে।

এবার মোট ৪৫৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৭১৯টি ইউনিট এবং ২৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ২৫টি (বাংলা একাডেমির ২টি) প্যাভিলিয়ন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বর্ধমান হাউজের পেছনে লিটল ম্যাগাজিন কর্নারে ১৩৬টি লিটল ম্যাগাজিনকে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ২৫ শতাংশ কমিশনে বই বিক্রি করবে।

(ঘাটাইল ডট কম)/-

121total visits,1visits today