ইসির সংলাপ; থাকছেন ৫৯ সুশীল

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে ৩১ জুলাই সুশীলদের সঙ্গে সংলাপে বসবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ জন্য সুশীল সমাজের ৬০ জনকে সংলাপে ডাকা হবে জানালেও শেষ পর্যন্ত ৫৯ জনকে ডাকছে ইসি। এরইমধ্যে সংশ্লিষ্টদের চিঠিও পাঠানো হয়েছে।

জানতে চাইলে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজ, গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলের সঙ্গে সংলাপ করা হবে। এরই অংশ হিসেবে ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপ করা হবে। নির্বাচন কমিশনের সম্মেলন কক্ষে এদিন সকাল ১১টায় সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে।

এ সংখ্যা আরো বাড়বে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, না। এ সংখ্যা আর বাড়ানো হবে না।

তালিকায় থাকা ৫৯ জন হলেন— অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক, বিচারপতি গোলাম রাব্বানী, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমেদ, অর্থনীতিবীদ ড. আবুল বারকাত, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, সেন্টার ফর ডেভলপমেন্ট কমিউনিকেশনের নির্বাহী পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর, বাংলাদেশ আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক ইনস্টিটিউটের পরিচালক ওয়ালিউর রহমান, ব্রতীর সিইও শারমীন মুরশিদ, জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদের (জানিপপ) চেয়ারম্যান ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের এক্সিকিউভ ডিরেক্টর বেগম রোকেয়া কবির, অধ্যাপক অজয় রায়, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সাবেক ভিসি ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী, ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এম এম আকাশ,  সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান, ডেমোক্রেসি ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক বেগম তালেয়া রেহমান, নিজেরাও করি এর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর খুশি কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল মান্নান চৌধুরী, টাইগার টুরস লিমিটেডের আবদুল মুয়ীদ চৌধুরী, ড. ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ, মির্জা আজিজুল ইসলাম, অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, অধ্যাপক তাসনিম সিদ্দীকী, সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজের অ্যাডভাইজর অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর এমাজউদ্দীন, আলী ইমাম মজুমদার, নিরাপদ সড়ক চাই এর সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন, বাংলাদেশ ইনডিজিনিয়াস পিপলস ফোরামের সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মাহবুবা নাসরীন, সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূত মো. জমির, অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, রাষ্ট্রদূত মো. গোলাম হোসেন, সোবহান শিকদার, আইইডির নির্বাহী পরিচালক নোমান আহমদ খান, ড. কাজী খলিকুজ্জামান আহমদ, সাবেক সচিব আব্দুল লতিফ মণ্ডল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান, বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউটের ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. হুমায়ুন কবির, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহম্মদ ফরাস উদ্দিন, সাবেক রাষ্ট্রদূত কাশেম, সাবেক সচিব এ এইচ এম কাশেম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক মো. ফেরদৌস হাসান হোসাইন, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ড. সাদাত হোসেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক তারেক শামসুর রহমান,  গভর্নেন্স অ্যান্ড রাইট সেন্টারের প্রেসিডেন্ট ড. জহুরুল আলম, মুভ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক, বিএসএসের চেয়ারম্যান রাহাত খান, ইত্তেফাকের সম্পাদক তাসমীমা হোসেন, জনকণ্ঠের সম্পাদক তোরাব খান ও সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী।

183total visits,3visits today

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.