আদালতের রায়; বিসিবি’র কাজে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না এনএসসি

বিসিবির কাজ কর্মে আর হস্তক্ষেপ করতে পারবে না দেশীয় ক্রীড়াঙ্গণ নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ আপিল নিষ্পত্তি করে বুধবার আদেশ দেন।আদেশ অনুযায়ী এখন থেকে বিসিবির গঠনতন্ত্র বিসিবিই সংশোধন করতে পারবে, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ নয়।

আপিল বিভাগের এ রায়কে যুগান্তকারী হিসেবে উল্লেখ করে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘এই রায়ে ক্রিকেটের জন্য যুগান্তকারী। তবে এখনও রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি হাতে পাইনি। সেটা হাতে পেলে সাধারণ সভা ডেকে অক্টোবরে নির্বাচনের দিকে যাব আমরা।’

২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সংশোধিত গঠনতন্ত্র অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয় হাইকোর্ট। এরপরের দিন ২৮ জানুয়ারি হাইকোর্টের এই রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি) ও বিসিবি।

ওইদিনই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সংশোধিত গঠনতন্ত্র অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায় স্থগিত করেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। পরে বিভিন্ন সময়ে এই স্থগিতাদেশ বাড়ানো হয়।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের নভেম্বর গঠনতন্ত্রের সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন বিসিবির সাবেক পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোবাশ্বের হোসেন এবং বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংগঠক পরিষদের সভাপতি ইউসুফ জামিল বাবু।

রিট আবেদনে বলা হয়, বিসিবির বিশেষ সাধারণ সভায় কাউন্সিলরদের মতামত নিয়ে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের (এনএসসি) কাছে গঠনতন্ত্র পাঠানো হয়েছিল। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ গঠনতন্ত্র যাচাই বাছাই করে সংশোধন করে বিসিবিতে ফেরত পাঠায়। ফের বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শে গঠনতন্ত্র সংশোধন করে এনএসসি।

এ রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ১৩ ডিসেম্বর আদালত রুল জারি করে। রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আদালত সংশোধনী অবৈধ ও অকার্যকর ঘোষণা করে রায় দেয়।

(ঘাটাইল.কম)/-

59total visits,1visits today